beetroot juice

স্বাস্থ্য ডেস্ক।।

বিটরুটের রয়েছে অনেক পুষ্টিগুণ। স্বাদের কারণে এই সবজিটি অনেকে এরিয়ে চললেও ডায়েটের ক্ষেত্রে বিটরুটের জুরি মেলা ভার। রান্না করে খাওয়ার চেয়ে সালাদ করে খাওয়াই ভালো কারণ এতে বিটরুটের পুষ্টিগুণ অক্ষুন্ন থাকে। এই সবজিটিতে আছে ক্যালসিয়াম, অ্যান্টি অক্সিডেন্ট, ভিটামিন সি, আয়রন ও ভিটামিন এ।

চাইলে বিটরুটের পাতাও খাওয়া যায়। গোলাপি রঙের এই সবজিটি খেতে একটু মিষ্টি মিষ্টি। তাই জুস করেও খেতে পারেন স্বাস্থ্যকর এই সবজিটি।

যেভাবে জুস করবেন-  বিটরুটের সঙ্গে গাজর, পেঁপে অথবা পানি মিশিয়ে দিয়ে ব্লেন্ড করুন। এতে জুসের ভিটামিন ও স্বাদ দুটাই বাড়বে। বিটরুটের জুসে অক্সালিক অ্যাসিড থাকায় কোনো কিছু না মিশিয়ে এ্রই জুস পান করবেন না।

beetroot

 

আসুন জেনে নেই বিটরুট জুসের কিছু গুণাগুণ-

১.  এই জুস ব্লাড প্রেসার নিয়ন্ত্রণে রাখতে সাহায্য করে। গবেষকরা জানিয়েছেন, আমাদের দেহের শিরা-উপশিরায় থাকা নাইট্রেটস মস্তিষ্কে অধিক হারে অক্সিজেন প্রবাহিত করতে সহায়তা করে।

২. রক্ত পরিস্কারে সাহায্য করে বিটরুট। দাগ দূর করে এটি ত্বকের ঔজ্জ্বল্য বাড়াতেও সাহায্য করে।

৩. এটি আমাদের যকৃত থেকে দূষিত পদার্থ বের করে দেয়। এতে যকৃত পরিস্কার হয় এবং রোগে আক্রান্ত হওয়া থেকে রক্ষা পায়।

৪. বিটরুট আমাদেরকে সক্রিয় ও উদ্যোমী রাখতে সাহায্য করে। উপকার পেতে সকাল বেলাতেই এই জুস পান করতে পারেন।

৫. হজমের ক্ষেত্রেও ভূমিকা রাখে বিটরুট। পেটের অসুখ দেখা দিলেও খেতে পারেন বিটরুটের জুস।

৬. এটি আমাদের রক্তে সুগারের মাত্রা নিয়ন্ত্রণে রাখে। খেতে সামান্য মিষ্টি হলেও তা ডায়বেটিস রোগীদের কোনো ক্ষতি করে না।

এজেড/

কোন মন্তব্য নেই

মতামত দিন