কুমিল্লার নামে বিভাগ প্রতিষ্ঠার দাবীতে ৩ দিনের কর্মসূচী ঘোষণা

কুমিল্লা প্রতিনিধি।।

জেলার নামে বিভাগ প্রতিষ্ঠার আন্দোলনে শুক্রবার কুমিল্লা কান্দিরপাড় পূবালী চত্বরে ছিল যুবসমাজ, ছাত্রসমাজ ও বিভিন্ন রাজনৈতিক এবং সামাজিক নেতা কর্মীর আন্দোলন।

দাবি আদায়ের চতুর্থ দিনেও কুমিল্লার সর্বস্তরের জনগণের বিভাগ প্রতিষ্ঠার আন্দোলন আরো বেগবান হয়ে উঠছে।তাদের একটাই দাবি ময়নামতি নয় কুমিল্লার নামেই বিভাগ বাস্তবায়ন করতে হবে। যতদিন পর্যন্ত কুমিল্লার নামে বিভাগ প্রতিষ্ঠিত না হবে ততদিন আন্দোলন চলবে। প্রয়োজন হয় ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়ক এবং ঢাকা-চট্টগ্রাম, নোয়াখালী ও চাঁদপুর রেললাইন অবরোধ করা হবে।

প্রতিদিনের ন্যায়ে শুক্রবার বিকাল সাড়ে ৩টা থেকে দফায় দফায় বিক্ষোভ মিছিল, মানববন্ধন ও কুমিল্লার প্রাণকেন্দ্র কান্দিারপাড় অবরোধ করা হয়।

মানববন্ধনে কুমিল্লা দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক যুগ্ম সম্পাদক শফিকুল ইসলাম শিকদার, কুমিল্লা প্রেস ক্লাবের সাবেক সাধারণ সম্পাদক আবুল কাশেম হৃদয়, ৭১ টিভির কুমিল্লা প্রতিনিধি কাজী এনামুল হক ফারুক এবং কুমিল্লা ভিক্টোরিয়া কলেজ সাবেক ছাত্রলীগ নেতা এড. আশিকুর রহমান জুয়েলসহ বিভিন্ন সংগঠনের একাত্বতা পোষণের মাধ্যমে ৩দিনের আন্দোলনের ঘোষণা দেওয়া হয়।

শনিবার কুমিল্লার ১৭টি উপজেলায় বিক্ষোভ ও মানববন্ধন, রোববার জেলার প্রত্যেকটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে মানববন্ধন এবং ২১ ফেব্রুয়ারি কুমিল্লা শহরের বিভিন্ন মোড়ে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ এমনকি কুমিল্লা কান্দিরপাড় অবরোধ সৃষ্টি।

মানববন্ধনে কুমিল্লা দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক যুগ্ম সম্পাদক শফিকুল ইসলাম শিকদার বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ১৯৯০ এর স্বৈরাচার বিরোধী আন্দোলনে কুমিল্লা রেল স্টেশনে এসে বলেছেন কুমিল্লাকে বিভাগ করা হবে।

এমনকি ২০১৫ সালে কুমিল্লা টাউন হল মাঠে জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলামের জন্ম জয়ন্তীতে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি বলেছিলেন কুমিল্লার নামেই বিভাগ হবে। কিন্তু আজ কিছু ষড়যন্ত্রকারীর ছোবলে পড়ে কুমিল্লার নাম বাদ দিয়ে ময়নামতি একটি ইউনিয়নের নামে বিভাগ প্রতিষ্ঠা করতে যাচ্ছেন।

আমরা দীর্ঘ ২৯ বছর যাবত কুমিল্লার নামে বিভাগ প্রতিষ্ঠার আন্দোলন করেছি, ময়নামতির নামে নয়। এ দাবি আমাদের দীর্ঘদিনের প্রাণের দাবি।

এসময় উপস্থিত ছিলেন, সোনার বাংলা কলেজের অধ্যক্ষ আবু ছালেক মো. সেলিম রেজা সৌরভ, কালিকা পুর আবদুল মতিন খসরু কলেজের অধক্ষ্য মো.মফিজুল ইসলাম, সাংবাদিক এম সাদেকসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক ও সাংস্কৃতিক নেতৃবৃন্দ।

জেআই/

কোন মন্তব্য নেই

মতামত দিন