pakistan

আন্তর্জাতিক ডেস্ক।।

পাকিস্তানের সিন্ধু প্রদেশের শেহওয়ান এলাকার লাল শাহবাজ কালান্দর মাজারে আত্মঘাতী হামলায় এখন পর্যন্ত ৭৫ জনের মৃত্যু হয়েছে। ভয়াবহ এ হামলার দায় স্বীকার করেছে মধ্যপ্রাচ্যভিত্তিক সন্ত্রাসী সংগঠন ইসলামিক স্টেট (আইএস)।

নিজেদের বার্তা সংস্থা আমাকে আরবি ভাষায় একটি বিবৃতি দিয়ে তারা জানিয়েছে, এ ঘটনায় তাদের একজন সৈনিক শহীদ হয়েছে।

আত্মঘাতী হামলায় ওই সৈনিক মৃত্যুবরণ করায় তার প্রতি কৃতজ্ঞতাও প্রকাশ করেছে আইএস। তবে আমাকে প্রকাশিত প্রতিবেদনটির ব্যাপারে পাকিস্তান প্রশাসন এখনো আনুষ্ঠানিকভাবে কোনও মন্তব্য করেনি।

কাউন্টার টেররিজমের কর্মকর্তা রাজা কুতুব জানিয়েছেন, হামলাকারী একজন পুরুষ ছিল। হামলাকারী নিজেকে বোরকায় আবৃত করে মাজারের মুল ফটকে এসে হামলা চালায়। নারীদেরকে লক্ষ্য করে চালানো এ হামলায় কমপক্ষে ৩০ টি শিশু নিহত হয়েছে। প্রাথমিক তদন্তে জানা যায়, হামলাকারীর সু্ডাইড ভেস্টটিতে কমপক্ষে ৮ কেজি বিস্ফোরক ছিল।

আহতেদেরকে তাৎক্ষণিকভাবে চিকিৎসা দেওয়া যায়নি কারণ কালান্দর মাজার থেকে সবচেয়ে কাছের হাসপাতালটিও ৭২ কিলোমটার দূরে। গাড়িতে করে সেখানে যেতেই লাগে দুই ঘণ্টা। শেহওয়ানে একটিও অ্যাম্বুলেন্স না থাকায় আহতদেরকে রিকশায় ও মোটরবাইকে করেও হাসপাতালে নেওয়া হয়েছে।

এ নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলোতে পাকিস্থানের ক্ষমতাসীন পাকিস্তান পিপল’স পার্টি সরকারের বিরুদ্ধে ক্ষোভ ঝেড়েছেন দেশটির সাধারণ নাগরিকেরা। তারা জানিয়েছেন, কাছাকাছি হাসপাতাল থাকলে অনেকের মৃত্য ঠেকানো যেতো।

সুফিবাদের চর্চার জন্য লাল শাহবাজ কালান্দারের মাজারটি দেশটির সবচেয়ে সম্মানিত সুফি মাজার। স্থানীয় সুফিদের জন্য বৃহস্পতিবার ছিল বিশেষ একটি দিন। এই দিন মাজারে ব্যাপক লোক সমাগম হওয়ায় বোমা হামলায় বহু সংখ্যক মানুষ হতাহত হয়।

এজেড/

কোন মন্তব্য নেই

মতামত দিন