শাওন নিজেই আমার ছবির প্রচারণা করছেন

জনপ্রিয় নির্মাতা মোস্তফা সরয়ার ফারুকী নির্মাণ করেছেন নতুন ছবি ‘ডুব’। যৌথ প্রযোজনায় নির্মিত ‘ডুব’ ছবির কাজ শেষ করেছেন নির্মাতা। সম্প্রতি সেন্সর বোর্ডে ‘ডুব’ ছবিটির ব্যাপারে আপত্তি জানিয়ে চিঠি দিয়েছেন হুমায়ূনপত্নী নির্মাতা, অভিনেত্রী মেহের আফরোজ শাওন। ছবিটি ঘিরে শুরু হয় তুমুল বিতর্ক। এ ছবি ও অন্যান্য প্রসঙ্গ নিয়ে কথা বলেছেন মোস্তফা সরয়ার ফারুকী সাাক্ষাৎকার নিয়েছেন নিপু বড়ুয়া

‘ডুব’ ছবিটি নিয়ে আপত্তি জানিয়েছেন নির্মাতা মেহের আফরোজ শাওন। এ প্রসঙ্গে বলুন

আমি কারো উপন্যাস কিংবা জীবনী তৈরি করি নাই। এই ছবিতে হুমায়ুন আহমেদ কিংবা মেহের আফরোজ শাওন নামে কোনো চরিত্র নেই। তাই এখানে তাঁর স্পর্শকাতর কিংবা আশঙ্কা হওয়ার কোনো ভিত্তি নেই।

ছবিটি কি সেন্সর বোর্ডে আটকে যাবে?
দেখুন. আমি চলচ্চিত্রের নীতিমালা জেনেশুনেই ছবিটি করেছি। কোনো আপত্তিকর বিষয়বস্তু তুলে ধরিনি। আইনের প্রতি আমার আস্থা আছে। আমি বিশ্বাস করি, ছবিটি সেন্সর বোর্ডের সকলের কাছে প্রশংসিত হবে।

কলকাতার আনন্দবাজার দাবি করেছিল এই ছবিটি হুমায়ুন আহমেদের জীবনী নিয়ে তৈরি হয়েছে?
আমি কোথাও বলিনি ছবিটি হুমায়ুন আহমেদকে নিয়ে তৈরি করছি। এখনও বলছি কারো বায়োপিক বানাইনি। উনি (মেহের আফরোজ শাওন) ছবিটি না দেখেই আপত্তি জানিয়েছেন। বিষয়টা খুবই বিব্রতকর। একটি মৌলিক গল্পের ছবি বানিয়েছি। যা দর্শকরা দেখলেই বুঝতে পারবেন।

তাহলে এটা বায়োপিক না?
এটা কারো বায়োপিক না, আমি একটা গল্প বলেছি। ছবিটি মুক্তির পর সবকিছুই পরিস্কার হয়ে যাবে। আমাদের দেশের দর্শকরা অনেক মেধাবী এবং সচেতন। তারাই আমাদের তৈরি করেছে। ছবির গল্পে প্রতিটি দর্শক নিজেদের গল্প খুঁজে পাবেন।

অনেকেই বলছেন হুমায়ুন আহমেদকে জড়িয়ে ছবির প্রচারণা করছেন?
আমি ছবির কোথাও হুমায়ুন আহমেদকে ব্যবহার করিনি। বরং শাওন আপা নিজেই আমার ছবির প্রচারণা করছেন। উনি যা কিছু করছেন তার আমার ছবির জন্য পজিটিভ হয়ে যাচ্ছে। ছবিটি সেন্সর ছাড়পত্র পেলেই আপনারা দেখতে পাবেন প্রচারণায় কোথাও হুমায়ুন আহমেদকে ব্যবহার করছি কিনা?

‘ডুব’ ছবির গল্পটা কেমন?
ছবির গল্প তো বলা যাবে না। সিনেমাটি যখন দর্শক দেখবে। তাদের মেধা বুদ্ধি বিবেচনা করে, ছবির গল্প এবং চরিত্রগুলোর অসহায়ত্ব, মানবিক বিষয়গুলো নিজেদের মতো করে দেখতে পাবেন। আমি মনে করি, দর্শকরা ছবিতে হৃদয়ের ডাক শুনতে পাবেন।

/এনবি/ ইউডি/

কোন মন্তব্য নেই

মতামত দিন