• বুধবার, ১৭ আষাঢ় ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, ২৮ জুন ২০১৭ খ্রিস্টাব্দ

দেশেই উৎপাদন হবে স্যামসাং পণ্য

প্রকাশ:  ১৫ জুন ২০১৭, ২০:৫২ | আপডেট : ১৫ জুন ২০১৭, ২১:০০
নিজস্ব প্রতিবেদক

বিশ্বখ্যাত ব্রান্ড স্যামসাংয়ের উন্নতমানের পণ্য সামগ্রী এখন থেকে বাংলাদেশেই উৎপাদন হবে। এ লক্ষে  দেশীয় প্রতিষ্ঠান ফেয়ার ইলেকট্রনিক্সের সঙ্গে যৌথভাবে নরসিংদী সামসাং গড়ে তুলছে প্রথম কারখানা। বৃহস্পতিবার এর উৎপাদন প্লান্টের ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন করেছেন শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু।

প্রায় ১৬ একর জায়গা জুড়ে স্থাপন করা এ কারখানায় তিন হাজারের বেশি কর্মসংস্থান হবে। আগামী বছরের মে মাস থেকেই এ কারখানায় নিয়মিত উৎপাদন শুরু হবে বলে জানিয়েছেন উদ্যেক্তারা। স্যামসাং এর এই কারখানায় বাংলাদেশের জন্য সাশ্রয়ী মূল্যের হোম অ্যাপ্লায়েন্স পণ্য উৎপাদনের মধ্য দিয়ে আন্তর্জাতিক বিভিন্ন ব্র্যান্ডকে বাংলাদেশে বিনিয়োগ করতে অনুপ্রাণিত করবে বলে আশা করা হচ্ছে।  

৭ লাখ ৫০ হাজার স্কয়ার ফুটের এই ম্যানুফেকচারিং প্ল্যান্টে রেফ্রিজারেটর, এসি,মাইক্রোওয়েভওভেন, টিভি এবংওয়াশিং মেশিনপ্রস্তুত করা হবে। প্ল্যান্টের সকল পণ্য স্যামসাং-এর দক্ষিণ কোরিয়ার প্রযুক্তিগত সহায়তায় প্রস্তুত করা হবে। এই প্ল্যান্টের উৎপাদক ক্ষমতা হবে প্রতি বছরে ৪ লাখ রেফ্রিজারেটর; ২ লাখ ৫০ হাজার মাইক্রোওয়েভ ওভেন; ১ লাখ ২০ হাজার এসি; ২ লাখ টিভি এবং ৫০ হাজার ওয়াশিং মেশিন।

এই কার্যক্রমটি এ বছর বাংলাদেশে স্যামসাং-এর সম্প্রসারণ স্ট্র্যাটিজির অংশ বলে জানিয়েছেন  প্ল্যান্টের সকল পণ্য স্যামসাং-এর দক্ষিণ কোরিয়ার প্রযুক্তিগত সহায়তায় প্রস্তুত করা হবে। এই প্ল্যান্টের উৎপাদক ক্ষমতা হবে প্রতি বছরে ৪ লাখ রেফ্রিজারেটর; ২ লাখ ৫০ হাজার মাইক্রোওয়েভ ওভেন; ১ লাখ ২০ হাজার এসি; ২ লাখ টিভি এবং ৫০ হাজার ওয়াশিং মেশিন। তিনি বলেন প্ল্যান্টের সকল পণ্য স্যামসাং-এর দক্ষিণ কোরিয়ার প্রযুক্তিগত সহায়তায় প্রস্তুত করা হবে। এই প্ল্যান্টের উৎপাদক ক্ষমতা হবে প্রতি বছরে ৪ লাখ রেফ্রিজারেটর; ২ লাখ ৫০ হাজার মাইক্রোওয়েভ ওভেন; ১ লাখ ২০ হাজার এসি; ২ লাখ টিভি এবং ৫০ হাজার ওয়াশিং মেশিন।

স্যাংওয়ান ইউন বলেন, 'নরসিংদীতে স্থাপিত স্যামসাং-এর এই উৎপাদন ইউনিটটি বাংলাদেশের প্রেক্ষিতে কর্মসংস্থান সৃষ্টি, রাজস্ব বৃদ্ধি এবং ভবিষ্যতের ব্যবসা উন্নয়নে গুরুত্বপূর্ণ ভুমিকা রাখবে।'

ফেয়ার ইলেকট্রনিক্স লিমিটেডের ম্যানেজিং ডিরেক্টর রুহুল আল মাহবুব বলেন, 'এটি আমাদের দেশের সবচেয়ে বড় প্রযুক্তি ভিত্তিক ইন্ডাস্ট্রি হবে। স্যামসাং মেশিনারি, প্রযুক্তি এবং মান নিয়ন্ত্রণ প্রক্রিয়ার মাধ্যমে আমরা গ্রাহকদের সাশ্রয়ী মূল্যে স্যামসাং-এর আন্তর্জাতিক মানের পণ্য তুলে দেওয়ার নিশ্চয়তা দিচ্ছি।'

নরসিংদীতে এই ম্যানুফেকচারিং প্ল্যান্টটি উদ্বোধন করে শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু বলেন, 'বিশ্বখ্যাত স্যামসাং প্ল্যান্ট স্থাপনের মাধ্যমে প্রমাণিত হয়েছে বাংলাদেশে ভাল বিনিয়োগ পরিবেশ রয়েছে। ১০০ মিলিয়ন মার্কিন ডলার এ প্ল্যান্টে বিনিয়োগ করা হচ্ছে। বাংলাদেশি ক্রেতারা সাশ্রয়ী মূল্যে স্যামসাং  পণ্য কিনতে পারবে। তিন হাজার কর্মসংস্থানের সুযোগ হবে এ প্ল্যান্টে।'

তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক বলেন, বাংলাদেশ থেকে  স্যামসাং পণ্য উৎপাদনের মাধ্যমে ডিজটিাল বিপ্লবে প্রবেশ করলো। নতুন এ প্ল্যান্টকে অনুষ্ঠানিকভাবে বেসরকারি হাইটেক পার্ক ঘোষণা করেন পলক। 

অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন পানিম্পদ প্রতিমন্ত্রী লে. কর্ণেল (অব.) মুহাম্মদ নজরুল ইসলাম ও  নিযুক্ত কোরিয়ার রাষ্ট্রদূত অনস্যাং-ডু উপস্থিত ছিলেন।