• বুধবার, ১৭ আষাঢ় ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, ২৮ জুন ২০১৭ খ্রিস্টাব্দ

অর্থ আত্মসাতের অভিযোগে

বাগেরহাটে ইউপি চেয়ারম্যান বরখাস্ত

প্রকাশ:  ১৯ জুন ২০১৭, ২০:৩২
বাগেরহাট প্রতিনিধি ।।

৯৭৭ জন বয়স্ক, বিধবা ও প্রতিবন্ধীদের টাকা আত্মসাতের অভিযোগে বাগেরহাট সদর উপজেলার গোটাপাড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও আওয়ামী লীগ নেতা শেখ শমসের আলীকে সাময়িক বরখাস্ত করেছে স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়।

সোমবার স্থানীয় সরকার পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ের উপসচিব মো. মাহবুবুর রহমান স্বাক্ষরিত চিঠি বাগেরহাটের প্রশাসনের কাছে পৌঁছেছে। তবে চেয়ারম্যান শেখ শমসের আলী শুরু থেকেই ঘুষ গ্রহণের অভিযোগ অস্বীকার করে আসছেন।

চেয়ারম্যান শেখ শমসের আলী বাগেরহাট সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক।

গত ২৬ মার্চ বাগেরহাট সমাজসেবা অধিদপ্তরের উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তা আবুল মোকাররম মো. ফজলে এলাহী শমসের আলীর বিরুদ্ধে বাগেরহাট মডেল থানায় একটি মামলা করেন। ওই মামলায় তিনি গত ২২ মে আদালতে হাজির হয়ে জামিন চাইলে আদালত তা মঞ্জুর না করে কারাগারে পাঠান।

কিছুদিন কারাভোগের পর তিনি বর্তমানে জামিনে মুক্ত রয়েছেন। ওই মামলাটি বর্তমানে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক) তদন্ত করছে।

বাগেরহাট সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নুরুল হাফিজ বিকেলে এই প্রতিবেদককে বলেন, স্থানীয় সরকার পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ের উপসচিব মো. মাহবুবুর রহমান স্বাক্ষরিত গোটাপাড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান শেখ শমসের আলীকে সাময়িক বরখাস্ত করার আদেশের চিঠি হাতে পেয়েছি। গোটাপাড়া ইউনিয়নের ৯৭৭ জন বয়স্ক, বিধবা ও প্রতিবন্ধীদের টাকা আত্মসাতের অভিযোগের সত্যতা মেলায় চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে মন্ত্রণালয় এই ব্যবস্থা নিয়েছে।

প্রসঙ্গত, গত ১৯ মার্চ বাগেরহাট সদর উপজেলার গোটাপাড়া ইউনিয়নের ৯৭৭ জন বয়স্ক, বিধবা ও প্রতিবন্ধীদের মাঝে ভাতার টাকা বিতরণে ২ থেকে তিনশ’ টাকা ঘুষ গ্রহণ করেন বলে অভিযোগ ওঠে। যার একটি ভিডিও ভাইরাল হয়।

পরে উপজেলা প্রশাসনের সহকারী কমিশনার (ভূমি) নাজমুল হুদা তদন্তে নেমে চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে ওঠা অভিযোগের সত্যতা পেয়ে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে মন্ত্রণালয়কে চিঠি দেন। এর দুইদিন পর জরুরি সভা করে তিনি তার ইউনিয়নের ৪নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য ও প্যানেল চেয়ারম্যান শেখ শহিদুল ইসলামকে আগামী তিনমাসের জন্য ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যানের দায়িত্ব দিয়ে ছুটিতে যান।

এসএম